মোবাইল দিয়ে ভিডিও বানানোর এডিট করার অ্যাপস ডাউনলোড ও টিউটোরিয়াল

 কিভাবে এন্ড্রয়েড মোবাইল দিয়ে ভিডিও এডিট করবেন জানতে চান? দারুন কিছু ফ্রি ভিডিও এডিটিং এপ এর ডাউনলোড লিংক নিয়ে আজকের আমাদের এই পোস্ট।আমি চেষ্টা করবো নামি বেনামি পরিচিত অপরিচিত Video Editing Apps Apk ডাউনলোড করার লিনক এবং কাজ করার উপায় দিতে। 
এখন মোবাইল কোম্পানি গুলো প্রতিদিন নতুন নতুন ক্যামেরা ফিচার যুক্ত সেট বাজারে আনছে। নতুন মোবাইল সেট  এর অন্যতম আকর্ষণ হিসাবে ক্যামেরা ই থাকে।মোবাইল ক্যামেরা রীতিমত প্রফেশনাল DSLR Camera এর সাথে কম্পিট করছে।
এদিক থেকে এপের বাজারে তাই ছবি ভিডিও ইত্যাদি এডিটিং এপ এর চাহিদাও দিন দিন বাড়ছে। আজকে তেমন কিছু মান সম্মত ভিডিও এডিট করার Apk নিয়ে আপনাদের সামনে আসছি।
বাই দা পথঘাট… আমাদের তালিকায় কিছু পেইড এপ কিছু ফ্রি এপ থাকছে। 

ভিডিও এডিট করার এপ্স এর তালিকা ২০২১ 

  1. Kinemaster  ( Free / Pro / Mod) 
  2. VivaVideo
  3. Adobe 
  4. Clips ( For iOS)
  5. Wondershare FilmoraGo 
  6. WeVideo
  7. iMovie( ios )

Kinemaster : ভিডিও বানানোর সহজ অ্যাপস

একদম শুরুতেই Kinemaster video edting Apk এর নাম রাখলাম কারন এটি আমার নিজের পছন্দের এপ। যদিও এই ভিডিও এডিটিং এপ কিনে ইউজ করতে হয় সব ফিচারস ইউজের জন্য, কিন্তু আমরা বাঙালিরা এসব এপ সফটওয়্যার কিনতে অভ্যস্ত নই! তাই প্রিমিয়াম এপের মড/ ক্রাক ভার্সন ইউজ করি।


কিনেমাস্টার ফ্রি এপ ঃ  Download 

কিনেমাস্টার প্রিমিয়াম এপের ফ্রি ভার্সন ঃ  Download


আপনি যদি পুরা লেখা পড়তে না চান কিংবা বেশি বেশি এপ সম্পর্কে জানতে আগ্রহি না হোন এবং জাস্ট ভালো মানের ভিডিও এডিট এর একটা এপ পেলেই হবে এমন মানুষ হয়ে থাকেন তাইলে উপরের লিংক থেকে Kinemaster এপ টি ডাউনলোড করে ইউজ করা শুরু করতে পারেন। আপনার সময়, এম্বি সবই বাচবে।

ভিডিও এডিটের জন্য Kine Master Apk এর সুবিধা ঃ 

সত্যি বলতে লো কনফিগের মোবাইল সেট দিয়েও যে প্রো লেভেলের ভিডিও এডিট করা সম্ভব না Kinemaster এপের মাধ্যমেই অনেকে জেনেছে।
অনেক …..অনেক ইউটিউব ভিডিও আছে যা মূলত মোবাইলে কিনেমাস্টার দিয়ে তৈরি করা।এটি ইউজ করা সহজ।


২। গ্রিন স্ক্রিন ফিচার। জি মোবাইল ভিডিও এডিট এর জন্য কিনেমাস্টার মনে হয় প্রথম যারা মোবাইল দিয়েই গ্রিন স্ক্রিন ভিডিও তৈরি করার সুবিধা আনছে। 
যারা জানেন না গ্রিন স্ক্রিন কি তাদের জন্য জানিয়ে রাখি, সোজা বাংলায় সবুজ পর্দা পিছনে রেখে ভিডিও তৈরি করে পরে সেই সবুজ পর্দা এডিট করে অন্য Background ছবি বা ভিডিও এড করার সুবিধা। আমার অনে হয় সবাই এটি জানে তাও জানিয়ে রাখলাম!!

৩। অডিও রেকর্ড ঃ Kine master এপে আলাদা করে অডিও রেকর্ড করার , অডিও এডিট করার সুবিধা আছে। 

৪। অডিও ইফেক্ট ঃ রেকর্ড ক্করা অডিও তে আপনি রোবট ভয়েস, এলিয়েন, সহ বেশ কিছু ইফেক্ট ইউজ করতে পারবেন। কথা মোটা করা বা চিকন করা এসব সুবিধাও পাবেন। ভিডিও বানানোর অ্যাপস ২০২১ 
ইন্ট্রো আউট্রো ঃ ইন্ট্র বানানোর জন্য video এডিট এর স্টোরে অনেক গুলো শর্ট ইফেক্ট পাবেন জেগুলো দিয়ে আপনি সহজেই চ্যানেল এর জন্য Intro Video বানাতে পারবেন।

৫। আর্মি , রাডার, নাইট ভিশন ইত্যাদি ঃ কিনে মাস্টার এপে অনেক গুলো ভিডিও ইফেক্ট আছে যে গুলো দিয়ে আপনি একশন ধর্মী ভিডিও বানাতে পারবেন। আমরা অনেক ভিডিও তে দেখে থাকি টার্গেট এর উপর স্নাইপার লেন্স ঘুরছে, কম্পিউটারে মুভিস্টিক কাজ চলছে ইত্যাদি বেশ কিছু ইফেক্ট আছে।

৬। লোগো ডিজাইন ঃ লোগো ডিজাইন বলতে আমি লোগো ডিজাইন করার কথা বলছি না!! আপনি আপনার ভিডিও তে লোগো কে অনেক ভাবে দেখাতে পারেন! উপর নিচ, ডান বাম চলমান কিংবা নাচানাচি ইত্যাদি অনেক ভাবে চ্যানেল এর লোগো দেখাতে পারবেন এই সফটওয়্যার দিয়ে। 

৭। কালার কারেকশন ঃ ছবির কিংবা ভিডিও এর কালারে পরিবর্তন আনার জন্য Kinemaster কালার চেঞ্জ এর সুবিধাও রাখছে।  মোবাইল দিয়ে ভিডিও বানানোর অ্যাপস এর মধ্যে এটি থাকে। 

৮। একাধিক লেয়ার এর সুবিধা। 
মোট কথা আপনি যদি দক্ষ হোন তাহলে আপনার নরমাল এন্ড্রয়েড সেট দিয়েই এই কিনেমাস্টার এপের মাধ্যমে পুরা প্রফেশনাল ভিডিও বানাতে পারবেন। ৭/৮ বছর আগে যা মদ্ধম মানের পিসি দিয়েও করতে দম ছুটে যেতো তা এখন মোবাইল দিয়ে ভিডিও এডিট এপ দিয়ে করতে পারবেন।  

কিনে মাস্টার এর অসুবিধা ঃ মোবাইল দিয়ে ভিডিও এডিট

ফ্রি ভার্সন এর এপ ইউজ করলে ভিডিও এর উপরে বড় করে kinemaster লেখা থাকবে! যা ভিডিও এর মান খারাপ করার জন্য এনাফ! তবে আপনি ক্র্যাক ভার্সন যেটা দিছি সেটা ইউজ করলে ওয়াটার মার্ক থাকবে না। আমি সেটাই ইউজ করি। 

মোবাইল দিয়ে ভিডিও তৈরির এপ : VivaVideo 

তালিকার দ্বিতীয় স্থানে ভিভা ভিডিও এপ কে রাখছি। এই এপ দিয়ে আপনি ফ্রেন্দদের সাথে শেয়ার করার মজার ভিডিও বানাতে পারবেন। কিনে মাস্টার যেমন কিছুটা প্রো প্র ভাবে থাকে এটি তেমন না! Viva Video apk দিয়ে অনেক আগে থেকেই অনেক ছেলে মেয়েরা লাফাঙ্গা টাইপের ভিডিও বানিয়ে আসছে! লাফাঙ্গা বললাম ভিডিও গুলো কাজের না, বেহুদা!!! 

Download : Viva Video


viva video এর সুবিধা ঃমোটামোটি সব সুবিধায় পাবেন! আলাদা করে বলার মত হলো এটি আপনাকে ভিডিও এর স্পীড কম বেশি করার সুযোগ দেয়। Background Blur করতে পারবেন। ইউজ করা সহজ।এর আরো একটা সুবিধা হলো এই এপে আপনি ১৯০+ ইফেক্ট পাবেন। সব ফ্রি তে পাবেন কিনা জানিনা তবে ওদের এপে আছে এটা জানি!!! 
অসুবিধা ঃ ঐ….আগের মতই! ফ্রি ইউজ করলে আপনার ভিডিও তে ওদের এপের নাম থাকবে!  

Clips : আই ফোন ইউজারদের জন্য এই এপ। এন্ড্রয়েড ইউজারদের জন্য নাই। তাই আর কিছু লিখছি না হিহিহি!!! 

Wondershare FilmoraGo : ফিল্মরা দিয়ে মূলত পিসিতে ভিডিও এডিট এর কাজ করা হয়। কেমটাসিয়ার মত। কিন্তু এর মোবাইল এপও বেশ কাজের। 


Abobe Spark Video : ছবি এডিট এর জগতে Adobe হলো টপের টপ বস! Photoshop তো একটি ব্র্যান্ড শব্দ হয়ে গেছে। Adobe ভিডিও এডিট করার জন্যও মোবাইল এপ রিলিজ করছে,  নাম Abobe Spark Video. আমি নিজে ইউজ করিনি তাই এই এপ নিয়ে তেমন কিছু বলতে পারছি না। আপনারা কেউ ইউজ করলে কমেন্টে ভালো মন্দ জানাতে পারেন ।
Adobe Premiere Rushপেইড এপ চলে আসছে! বিরক্ত হয়েন না আমিও জানি আমরা বাংলাদেশি পেইড এপ কম ই ইউজ করি! তাও যারা প্রফেশনাল ভাবে ভিডিও এডিট করতে চান তাদের জন্য প্রিমিয়াম এপ ই দরকার।প্রিমিয়াম এপ কিন্তু ফ্রি তে ইউজ করতে চান তাহলে বলবো আমাদের তালিকায় থাকা KineMaster ভিডিও এডিটিং এপ টা ইউজ করতে পারেন। কিনে মাস্টারে প্রফেশনাল ফিচার পাবেন তাও ফ্রি তে!!

আরো কিছু ভিডিও বানানোর Apps

নিচে দেওয়া এপ গুলোর অনেক গুলো ই কিনে ইউজ করতে হয় । এবং আমি নিজে সব গুলো ইউজ করিনি তাই বিস্তারিত ভালো খারাপ বলতে পারবো না। তবে ভিডিও বানাতে, এডিট করতে এসব এপ কম বেশি পরিচিত বলেই মনে করি। 

  1. Adobe Premiere Rush – Download
  2. iMovie – Download
  3. QUIK APP – Download
  4. SPLICE – Download
  5. inShot App – Download
  6. StoriesStudio – Download
  7. WeVideo – Download
  8. CLIPS – Download
  9. KineMaster – Download
  10. Videoshop – Download
  11. VivaVideo – Download
  12. Magisto – Download
  13. PicPlayPost – Download

অ্যাডোব প্রিমিয়ার রাশ
অ্যাডোব প্রিমিয়ার রাশ অনলাইন ভিডিও তৈরি এবং ভাগ করে নেওয়ার জন্য একটি ভিডিও এডিটিং অ্যাপ্লিকেশন। রাশ শিখতে সহজ, এবং এটি আপনাকে গতি গ্রাফিক্স টেম্পলেট, অডিও বৈশিষ্ট্য এবং আপনার ক্রিয়েটিভ ক্লাউড লাইব্রেরি এবং অ্যাডোব স্টকে ট্যাপ করার ক্ষমতা দিয়ে আপনার সৃষ্টির উপর প্রচুর নিয়ন্ত্রণ দেয়। আপনি ক্যাপচার, ছাঁটাই, ক্লিপ ক্রম পরিবর্তন, রঙ-সঠিক, ভয়েস ওভার রেকর্ড করতে এবং রঙিন ফিল্টার এবং পাঠ্য ওভারলেগুলি যোগ করতে পারেন।
প্রিমিয়ার রাশ ঝামেলা-মুক্ত এবং কলহবিহীন, এটি অ্যাডোবের পেশাদার সফ্টওয়্যার, যেমন প্রিমিয়ার প্রো, আফটারএফেক্টস এবং অডিশনের ভিডিও সম্পাদনা, গতি গ্রাফিক্স এবং অডিও মিক্সিং ক্ষমতাগুলিকে সহজতর করে এবং সীমিত ভিডিও সম্পাদনা দক্ষতার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। ইন্টারফেস স্বজ্ঞাত। আপনি রাশকে নিয়ে কোনও ফিচার ফিল্ম তৈরি করতে যাচ্ছেন না, তবে আপনি কিছুক্ষণের মধ্যে একটি শ্রদ্ধেয় ভ্রমণ ভ্রমণ, ভাষ্য বা নির্দেশমূলক ভিডিও একসাথে ছুঁড়ে ফেলতে পারেন এবং এটি আপনার যে কোনও সামাজিক মিডিয়া আউটপুট ফর্ম্যাটের সাথে সামঞ্জস্য করতে পারেন।
iMovie
আইএমভি হ’ল অ্যাপল দ্বারা বিকাশিত ভিডিও সম্পাদনা অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করা সহজ। iMovie আপনাকে 14 টি ট্রেলার টেম্পলেট এবং 8 টি স্বতন্ত্র থিম, ক্রেডিট রোল এবং স্টুডিও লোগো সহ ফটো এবং ভিডিওগুলি ব্যবহার করে পছন্দ করে সুন্দর সিনেমা বেছে বেছে হলিউড-স্টাইলের ট্রেলার তৈরি করতে দেয়। এই ভিডিও সম্পাদনা অ্যাপ্লিকেশনটি 4 কে ভিডিও রেজোলিউশন সমর্থন করে এবং সমাপ্ত পণ্যটি একটি অ্যাপল ডিভাইস থেকে প্লে করা যায় এবং একটি স্ক্রিনে প্রজেক্ট করা যায়। এটি এয়ারড্রপ বা আইক্লাউড ড্রাইভ ব্যবহার করে আপনার আইফোন, আইপ্যাড এবং আইপড স্পর্শের মধ্যে ভিডিওগুলি সহজেই স্থানান্তর করে। ভিডিওগুলি কোনও ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম বা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাগ করা যায়।

কুইক অ্যাপ্লিকেশননাম অনুসারে এটি ব্যবহারকারীদের দ্রুত ভিডিও তৈরি করতে সক্ষম করে। এর দ্রুত সম্পাদনা প্রক্রিয়াটির সাহায্যে আপনি কোনও সময়ের মধ্যে ক্যাপচার, সম্পাদনা এবং পোস্ট করতে পারবেন। কুইক প্রাথমিকভাবে ইনস্টাগ্রামারদের জন্য ডিজাইন করা হয়েছিল তবে তাদের ডিভাইসে ছবি ও ভিডিও সহ যে কেউ উপযুক্ত। প্রায় 28 টি বিচিত্র ভিডিও শৈলী রয়েছে। এর স্বয়ংক্রিয় সম্পাদনা বৈশিষ্ট্যটি এটির সেরা বৈশিষ্ট্য, তবে আপনি এখনও কয়েকটি টুইট করতে পারেন – শৈলী; গতি; হরফ; শিরোনাম; ফিল্টার; ছাঁটা ইত্যাদি ইত্যাদি একমাত্র অসুবিধা হ’ল এটি ব্যবহারকারীদের খুব কম সম্পাদনার নিয়ন্ত্রণ দেয়।
স্প্লাইসGoPro এর নির্মাতাদের কাছ থেকে এই আশ্চর্যজনক অ্যাপ্লিকেশন আপনাকে ক্লিপগুলি আমদানি এবং ব্যবস্থা করতে সক্ষম করে, যার প্রতিটি স্বতন্ত্রভাবে সম্পাদনা করা যেতে পারে। এটি একটি সর্ব-উদ্দেশ্যমূলক ভিডিও সম্পাদনা অ্যাপ্লিকেশন এবং iMovie এর সাথে বেশ মিল। আপনার আইফোনে দ্রুত চলচ্চিত্র সম্পাদনা করার জন্য এটি সেরা। আপনি পাঠ্য, স্থানান্তর এবং ফিল্টার যোগ করতে পারেন; ভিডিও ক্লিপগুলি ছাঁটাই এবং ব্যবস্থা করুন, ‘ডকুমেন্টারি-স্টাইলের প্রভাবগুলি ব্যবহার করুন, ততক্ষণ গতিও সামঞ্জস্য করা যায়। স্পাইস একাধিক অডিও ট্র্যাক, প্রভাব এবং গান বিনামূল্যে দেয়, আপনি এই বৈশিষ্ট্যটি ব্যবহার করতে পারেন বা আইটিউনস লাইব্রেরির সাথে সিঙ্ক করতে পারেন।

ইনশট অ্যাপ
ইনশট অ্যাপটি একটি বিস্তৃত সামগ্রী এবং ভিডিও সম্পাদনা অ্যাপ্লিকেশন। এটি আপনাকে ভিডিওগুলি তৈরি করতে, ক্লিপগুলি ছাঁটাই করতে এবং ক্লিপগুলি একীভূত করতে, কোনও ভিডিওর কিছু অংশ কাটা বা মুছতে এবং ভিডিওর গতি সামঞ্জস্য করতে সহায়তা করে। এটি ইনস্টাগ্রামের জন্য সেরা উপযোগী এবং ফটোগুলি সম্পাদনা, চিত্র কোলাজ তৈরি , অস্পষ্ট সীমানা, ইনস্টাগ্রামের জন্য চিত্র বা ভিডিও স্কোয়ার তৈরি ইত্যাদি ক্ষেত্রে ফিল্টার, সংগীত, ভয়েস-ওভার এবং পাঠ্যও যুক্ত করা যেতে পারে

WeVideo –ওয়েভিডিও একটি দুর্দান্ত ফিল্ম সম্পাদনা সফটওয়্যার যা দুর্দান্ত মান সহকারে আসে, এটি যখন ক্লাউড-ভিত্তিক ভিডিও সম্পাদকদের আসে তখন এটি চার্জের নেতৃত্ব দেয়। এই ভিডিও সম্পাদনা অ্যাপটি ক্লাউড স্টোরেজ এবং পেশাদারদের জন্য স্ক্রিনকাস্টিং ফাংশন সহ আসে
ফ্রি সংস্করণে আপনার প্রায় প্রয়োজন সমস্ত বৈশিষ্ট্য রয়েছে। আপনি ক্লিপগুলি ছাঁটাই করতে পারেন, ফিল্টারগুলি যুক্ত করতে পারেন, অন্তর্নির্মিত লাইব্রেরি থেকে সংগীত চয়ন করতে পারেন, গতি সামঞ্জস্য করতে পারেন, ক্লিপটি সামাজিক মিডিয়া প্রোফাইলগুলিতে ভাগ করতে পারেন ইত্যাদি video অ্যাপ্লিকেশনটির সর্বোত্তম বৈশিষ্ট্যগুলি হ’ল সহজ ইন্টারফেস এবং মাল্টি-ডিভাইস ক্লাউড স্টোরেজ, এটি আপনাকে একটি প্রকল্পে আপনার প্রকল্প শুরু করতে এবং আপনি অন্যটিতে ছেড়ে দিয়েছিলেন এমন জায়গা বেছে নিতে দেয়।
ত্রুটিটি হ’ল ফ্রি সংস্করণটি প্রকৃত বিনামূল্যে সংস্করণের চেয়ে একটি বিনামূল্যে পরীক্ষার মতো। ক্লাউড স্টোরেজ 10 জিবি সীমাবদ্ধ। সুতরাং আপনি যদি একাধিক ভিডিও তৈরির পরিকল্পনা করেন তবে আপনাকে আপগ্রেড করতে হবে।

Leave a Comment

Copy link
Powered by Social Snap