বাংলা ইসলামিক বই এর তালিকা ও ডাউনলোড লিংক এবং রিভিউ

আপনি যদি ইসলামিক বই পড়ার জন্য কোন বই কিনবেন  ভেবে থাকেন তাহলে এই পোস্ট আপনাকে কিছুটা হলেও সাহায্য করবে আশা করি। কারন আজকের পোস্টে আমি বেশ কিছু ইসলামিক বাংলা বই এর রিভিউ লেখা দিচ্ছি এখানে। পাঠকরা বই গুলো পড়ে তাদের কাছে কেমন লেগেছে সেগুলো তাদের মত করেই লিখেছে রিভিউ গুলোতে। আপনি এসব রিভিউ পড়ে বুঝতে পারবেন কোন বই কি নিয়ে লেখা। ফলে আগেই বুঝতে পারবেন আপনি কি বইটা কিনবেন নাকি পরে কিনবেন। 

বইঃ  অভিশপ্ত রঙধনু, লেখকঃ ডা. শামসুল আরেফিন শক্তি

 “অভিশপ্ত রঙধনু” বইয়ের এবারের সংস্করণে “নীল নকশা” শিরোনামে কার্ক মেডসনের থিউরি সম্পূর্ণ আলোচনা করা হয়েছে। এখানে দেখানো হয়েছে, একটি সমাজে বিশেষ করে মুসলিম সমাজে কীভাবে সমকামিতার মতো বিষয়কে ধীরে ধীরে ছক কষে প্রবেশ করানো হচ্ছে। পোস্টের সাথে সংযুক্ত ছবি থেকে একটু স্বচ্ছ ধারণা পাবেন। বিস্তারিত জানতে আর কয়েকটা দিন অপেক্ষা করুন। আর বইটির বহুল প্রচার কামনা করছি আপনাদের ফেসবুক পোস্ট, লেখায়, ছবিতে। এই ছবিটিও ব্যবহার করতে পারবেন আপনার দেওয়ালে।

একটি সমাজে সমকামিতা কীভাবে স্বাভাবিক করা হয়-

ক) ডিসেনটাইযেশন – সমকামিতা খারাপ এই চিন্তা মানুষের মন থেকে দূর করা।

খ) ভিকটিমহুড – সমকামিতা জন্মগত, এতে তার কোন দোষ নাই, এটা স্রষ্টা প্রদত্ত।

গ) ডাইভারসিটি – অধিকার সংরক্ষণের মূলা ঝুলানো

ঘ) এম্ফেসাইয – সমকামিতা হারাম এই বিষয়ে জোর দিয়ে সমকামীর প্রতি সিম্প্যাথি অর্জন।

ঙ) ভিকটিমাইযার – সমকামিতার বিরুদ্ধাবাদীদের সমাজে দোষী হিসেবে উপস্থাপন।

চ) লিগ্যাল রিফর্ম – সমকামী যৌন জীবনের অধিকার সম্পর্কিত বিষয়ে আইনের পরিবর্তন।

নীল নকশা, অভিশপ্ত রঙধনু নতুন সংস্করণ আসছে শীঘ্র …… ডিজাইনঃ খান নিলয়, গ্রাফিক্স ডিজাইনার, দারুল ইহদা। সুত্রঃ অভিশপ্ত রঙধনু।

– Tazul Islam

অনলাইন থেকে কিনুনঃ অভিশপ্ত রঙধনু (পুরাতন)

অনুভূতির প্রকাশক – নাহাস মুহাম্মদ

বইঃ মিউজিকঃ শয়তানের সুর, লেখকঃ শাইখ আহমদ মূসা জিবরীল

যারা গান শুনে তাদের এই বইটা ধরিয়ে দিলেই হবে। বোঝার হলে এমনি বুঝবে!(যদি বিশ্বাসী হন) .শাইখ আহমদ মূসা জিবরীল আমার প্রিয় স্কলারদের একজন। উনার যতগুলো বই পড়েছি প্রত্যেকটাই মাস্টারপিস।.কুরআন হতে দলিল, হাদিস থেকে দলিল এবং ঈমামগণের মতামত বইটাই তুলে ধরা হয়েছে সুন্দরভাবে।

একটা কুরআনের আয়াত ও হাদিস তুলে ধরলাম পড়ে একটু ভেবে দেখুন কেমন?.১. “… এদের মধ্যে যারাই তোমার অনুসরণ করবে, তুমি-সহ তাদের সবার জন্য জাহান্নামই হবে পূর্ণ প্রতিদান। তুমি যাকে পারো তোমার আওয়াজের(বাদ্যযন্ত্র এবং মন্দ বিষয়াদি) মাধ্যমে বিভ্রান্ত করো।…” (সূরা বনী ইসরাঈলঃ৬৩-৬৪).

২.রসূলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন- আমার উম্মতের মাঝে অবশ্যই এমন কতগুলো দলের সৃষ্টি হবে, যারা যিনা-ব্যভিচার, রেশমি কাপড়, মদ ও বাদ্যযন্ত্রকে হালাল মনে করবে। (বুখারী, ৫৫৯০).

মিউজিক গান বাজনা ও ইসলাম

.শেষ করি অন্য একটা বইয়ের কিছু লাইন দিয়ে ~”মিউজিক আত্মার খোরাক নয়।মিউজিক হলো প্রবৃত্তির খোরাক। এটা বাস্তবেই নফসের খোরাক। আর এই মিউজিক হলো অত্যন্ত বিপদজনক বিষ।এই বিষ যদি কারো ভেতরে প্রবেশ করে তখন সে বোঝে না — তা তার কী পরিমাণ ক্ষতি করে ফেলে।

আমি আপনাকে পরিক্ষা করার কথা বলছি না। কিন্তু নিশ্চিত বিশ্বাস করুন, আপনি যদি কোনো বুজুর্গের কাছে গিয়ে দ্বীনি বয়ান শোনেন আর এরপর মাত্র পাঁচ মিনিট কোনো গান শোনেন তাহলে এতোক্ষণের পুরো বয়ান ধুয়ে-মুছে পরিষ্কার হয়ে যাবে।”(আমি জুনায়েদ জামশেদ বলছি…).

জানানো দরকার ছিল তাই জানালাম বাকিটা মিউজিক আসক্তদের মর্জি 🙂
বই ~ মিউজিকঃ শয়তানের সুর লেখক ~ শাইখ আহমদ মূসা জিবরীলপ্রকাশনী ~ সমর্পণ প্রকাশন প্রচ্ছদমূল্য ~ ৪৭/-পৃষ্ঠা ~ ২৭

© নাহাস মুহাম্মদ

বই ‘সবার উপরে ঈমান’ প্রকাশকঃ Maktabatul Bayan


আবদুল্লাহ ইবনু আমর ইবনিল আস রদ্বিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, ‘নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন,“কিয়ামাতের দিন আল্লাহ আমার উম্মাহর একজনকে সকল সৃষ্টির সামনে আলাদা করে নেবেন। তারপর তার সামনে নিরানব্বইটি খাতা (আমলনামা) ছড়িয়ে দেবেন, প্রত্যেকটি খাতা দৃষ্টি যতদূর যায় ততদূর বিস্তৃত হবে। .এরপর আল্লাহ বলবেন: ‘তুমি কি এখানকার কোনো কিছু অস্বীকার করো?

আমার নিযুক্ত সংরক্ষক লেখকগণ কি তোমার প্রতি কোনো জুলুম করেছে?’ সে বলবে: ‘না, রব আমার!’ আল্লাহ বলবেন: ‘তোমার কি কোনো অজুহাত আছে?’ সে বলবে: ‘না, রব আমার!’ আল্লাহ বলবেন: ‘কেন নয়? অবশ্যই! আমার কাছে তোমার একটি ভালো কাজ জমা আছে! আজ তোমার প্রতি কোনো জুলুম করা হবে না।’ .

এরপর আল্লাহ একটি কাগজ বের করবেন যার মধ্যে থাকবে—আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি আল্লাহ ছাড়া দাসত্ব লাভের অধিকারী কোনো সত্তা নেই, আর আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি মুহাম্মাদ ﷺ তাঁর দাস ও বার্তাবাহক। তখন আল্লাহ বলবেন: ‘তোমার দাঁড়িপাল্লা নিয়ে আসো।’ সে বলবে: ‘মনিব আমার! এসব খাতার বিপরীতে এ কাগজটির কী গুরুত্ব আছে?’ আল্লাহ বলবেন: ‘তোমার প্রতি কোনো জুলুম করা হবে না।’

.এরপর খাতাগুলো এক পাল্লায় আর কাগজটি অপর পাল্লায় রাখা হবে। তখন খাতাগুলো হালকা আর কাগজটি ভারী হয়ে যাবে। কোনোকিছুই আল্লাহর নামের চেয়ে বেশি ভারী হবে না!”’ (সূত্র: তিরমিযি ২৬৩৯, হাসান গরীব; আহমাদ ২/২১৩ (৬৯৯৪); ইবনু মাজাহ্ ৪৩০০) .Maktabatul Bayan থেকে প্রকাশিতব্য বই ‘সবার উপরে ঈমান’ থেকে একটি হাদীস।
– Nahedujjaman Shakil

বইঃ ফেরালেখকঃ সিহিন্তা শরীফাহ,নাইলাহ আমাতুল্লাহ

বইটি মূলত দুই বোনের আত্মজীবনী। যারা খ্রিষ্টান ধর্ম ছেড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে। তাদের পিতা ইসলাম থেকে খ্রিষ্টান ধর্ম গ্রহণ করে খ্রিষ্টান মেয়েকে বিয়ে করার জন্য। বইটিতে প্রথমে সিহিন্তা শরীফাহর ইসলাম গ্রহণের ঘটনাবলী তার নিজের বয়ানে উল্লেখ করা হয়েছে। এরপর নাইলাহ আমাতুল্লাহর বয়ানে ঘটনাবলী উল্লেখ করা হয়েছে। দুই বোনের ইসলাম ধর্মে আসার যাত্রা মোটেও সহজ ছিল না।

ছোটবেলা থেকেই খ্রিষ্টান ধর্ম পালনে প্রতি তারা খুবই আগ্রহী ছিল। কিন্তু পরবর্তীতে তারা ধীরে ধীরে ইসলামের দিকে ধাবিত হয়। প্রথমে তাদের ইসলাম পালন করা ছিল খুবই কষ্টসাধ্য। কিন্তু আল্লাহ তায়ালা সব সহজ করে দেন। খৃষ্টান ধর্মের নানা আচার-অনুষ্ঠানের বর্ণনা বইটিতে রয়েছে। শেষমেশ সকল প্রতিকূলতাকে জয় করে ফিরে আসা হয় সত্যের নীড়ে। খ্রিস্টান থেকে কেন তারা মুসলিম হল? কোন কোন বিষয় তাদের ইসলামের দিকে ধাবিত করেছে? জানতে চাইলে বইটি পড়তে পারেন।– Munna Parvez

বলে রাখা ভালো এখানের সব বই আমি নিজে পড়ে দেখিনি, আমি এখানে বিভিন্ন ভাই এর লেখা রিভিউ পোস্ট করছি মাত্র। যেহেতু ইসলামিক বই সেহেতু বই গুলো ভালো হবে বলেই জানি। বিশেষ করে শক্তি ভাই এর লেখা বই গুলো ইতিমধ্যে বেশ সাড়া ফেলেছে আর শায়েখ আহমেদ মুসা জিবরীল (হাফিঃ) কে নতুন করে পরিচয় করানোর নাই।
আপনারা বই গুলো পড়তে পারেন তবে কোন ধারনা, সিদ্ধান্ত, বিশ্বাস এসকল কিছু আপনি আপনার বুঝ অনুযায়ীই নিবেন। আমি দায় মুক্ত। – এডমিন

উপরের বই গুলোর এখনো অফিশিয়ালি পিডিএফ প্রকাশ হয়নি তাই আমরাও কোন ফ্রি পিডিএফ ডাউনলোড লিংক শেয়ার করছি না। অনুমতি ছাড়া ইসলামি বই এর পিডিএফ বানানো ও প্রকাশ করা ইসলামিক আইন অনুযায়ী অবৈধ।

Leave a Comment

Copy link
Powered by Social Snap