স্কুল লাইফে কেনো প্রেম করবেন না?

স্কুল লাইফে প্রেম ভালোবাসা থেকে বিরত থাকবেন তার কিছু পয়েন্ট তুলে ধরার চেষ্টা করবো। আমি জানি যারা স্কুলে পড়তিছে তারা এই লেখা পড়ে আমাকে থোড়াই কেয়ার করবে কিংবা আমার এই লেখাকে থোড়ায় পাত্তা দিবে!! কিন্তু আমরা যারা স্কুল শেষ করে বিশেষ করে স্টাডির পার্ট শেষ করে এখন জীবিকার পার্টে আছি তারা জানি একদিন ঠিকি তারা বুঝবে!! 
কি বলেন?

স্কুল কলেজে প্রেম না করার ৫ টি কারন

১.  ২৪ ঘণ্টায় সে 

যখন আপনি কারো প্রেম পড়বেন তখন দেখবেন চারিদিকেই তার চিন্তা, সব সময় মাথাতে ঐ মানুষ এর চিন্তা ছাড়া আর কিছু আনতে বা ভাবতেও মন চাই না! এতে আপনার মানুষিক সুখ অনুভব হলেও ভৌত দুনিয়াবি দুঃখ ছাড়া কিছু পাবেন না। কারন একজন মানুষ কে নিয়ে সারাক্ষন দিবাস্বপ্ন দেখতে থাকলে আপনার সময়, ব্রেন, কাজের গতি সবই কমে যাবে। আপনি ফকিরের পথে যেতে থাকবেন। আর কেউ ই ফকির পছন্দ করে না।
হ্যাঁ আপনার বাপের টাকা দিয়ে কিছুদিন ফুটানি দেখাতেই পারেন কিন্তু সেটা বেশিদিন টিকবে না।

স্কুলে প্রেম ভালোবাসা

২. লেখাপড়ায় ক্ষতি 

প্রেমে পড়ে ভালো হয়ে গেছে বা কোনোদিক থেকে লাভবান হয়েছে এমন উদাহরণ খুবই বিরল খুবইইইই। অকালে প্রেমে পড়ছেন মানে আপনার ক্ষতি ছাড়া কোন লাভ নাই।কত তুখড় ছাত্র ছাত্রী প্রেমে পড়ে নষ্ট হয়ে গেছে তার শেষ নাই। আপনি  যতই ভালো স্টুডেন্ট হোন না কেন ভালো রেজাল্ট করলে পড়তে হবে, বুঝতে হবে, প্র্যাকটিস করতে হবে সবার সাথে রেসে টিকে থাকতে হবে। কিন্তু আপনি যখন কারো মনের রেসে দৌড়ে ব্যস্ত তখন স্বাভাবিক ভাবেই লেখাপড়ার দৌড়ের দিকে আপনার মনোযোগ থাকবে না বা কম থাকবে। ফলাফল? খারাপ রেজাল্ট।
আর বিলিভ মি আপনি সারাজীবন প্রথম হওয়া স্টুডেন্ট হলেও আপনি যখন প্রথম বার ফেল করবেন তখন দেখবেন আপনার অতিতের সব ভালো রেজাল্ট সবাই ভুলে গেছে!! নাই হয়ে গেছে!!

৩.  টাকা নষ্ট 

ছাত্র জীবনে কত টাকা ইনকাম করতে পারেন? বেশি হলে ৫ হাজার। এখন আপনি যখন কাউকে ভালোবাসার নামে মনের আবেগ কে পাত্তা দিয়ে গফ বফ নিয়ে ঘুরতে যাবেন, ভালো রেস্টুরেন্টে খেতে যাবেন তখন এক বসাতেই মিনিমাম ২ হাজার টাকা শেষ হয়ে যাবে!!খুব হাই ফাই কিছুর দরকার নাই, জাস্ট গফের সামনে ইজ্জত রাখতে যত টুকু খরচ করা দরকার তত টুকু খরচ করতেই দেখবেন ২ হাজার নাই।
আচ্ছা বলেন তো আমরা আমাদের ফ্রেন্ডদের জন্য খরচ না করলেও কিংবা কম খরচ করলেও কেন মান সম্মান নিয়ে চিন্তায় পড়ি না? কেনো নিজেকে ছোট মনে হয় না? অথচ গফের সামনে নিজের ইজ্জত রক্ষায় অনেকে ধার দেনা পর্যন্ত করে!!!


কেনো?


কারন আমাদের ফ্রেন্ডদের সাথে আমাদের সম্পর্ক ন্যাচারাল আর গফ বফের সাথে প্রেম সম্পর্ক হলো আর্টিফিশিয়াল। এখানে সব কিছুই মিথ্যা ভাবে হলেও ফিটফাট দেখাতে হয় নাহয় সম্পর্ক নষ্ট  হয়ে যায়, অপর পক্ষ এর কাছে ছোট হতে হয়।আর এজন্যই প্রেম করে যারা বিয়ে করে তারা যখন তাদের ন্যাচারাল লাইফে একজন আরেকজন কে দেখে তখন তাদের মধ্যে আগের ঐ প্রেম প্রেম সুখ থাকে না!! বিয়ের প্রথম ২ বছর খুবই কষ্ট করে মানিয়ে নিয়ে হয়, আগের চিনা জানা ফিট ফাট মানুষের ল্যাবড়া থ্যাবড়া লাইফ কে সহ্য করে নিতে হয়।কেউ পারে অনেকে পারে না। 

৪. ফিউচার নষ্ট 

অকালে প্রেম করলে অকালে ঝরে যেতে হয়। এখন এখানে অকালে প্রেম বলতে কি বুঝাচ্ছি? অকালে প্রেম হলো স্কুল, কলেজ আর অনার্স এর প্রেম। অনেকেই হাসবেন এই বলে যে তাইলে কি বুড়া হওয়ার পর প্রেম করবো? আসলে আমাদের অনেকের ধারনা অনার্স বুঝি অনেক কিছু এই সেই ব্লা ব্লা। আসলে অনার্স ও কিছু না। অনার্স শেষ করতে করতেই একটা ছেলে ম্যাচিউর হয়। অনার্স শেষে যখন জব বা বিজনেস লাইফে ঢুকে তখন বলা যায় ছেলেরা ম্যাচিউরড হয়েছে। ভাল মন্দ বুঝে। 


মেয়েরা আরো আগেই ম্যাচিউরড হয় এটা ঠিক কিন্তু ছেলেরা হতে পারে না। এ জন্য দেখবেন একই রকম ২ জন ছেলে মেয়ে প্রেম করা শুরু করলে ছেলেটা পিছিয়ে পড়ে, অনেক সময় ঝরেই যায় কিন্তু মেয়েরা ঠিকি তাদের গতি ঠিক রাখে। লেখাপড়ার গতি, নিজের লাইফের গতি সব। কারন মেয়েরা ম্যাচিউরড চিন্তা করে। প্রেম করলেও প্রেমে গা ভাসিয়ে দিয়ে ভেসে পড়ে না।


তাই ছেলেদের উচিত  অনার্স এর আগে প্রেম ট্রেম না করা। আর অনার্স শেষ হলে জব করে বিয়ে করে ফেলা। বিশ্বাস করেন প্রেমে অনেক অনুভূতি নষ্ট হয়ে যায় কিন্তু এরেঞ্জ মেরেজ করে বিয়ের পর যখন আপনার বিবাহিত স্ত্রীকে ভালোবাসবেন, তার প্রেম পড়বেন তখন কোন অনুভূতি নষ্ট হবে না। শারিরিক মানুষিক, ঝগড়া, খুনসুটি সব অনুভূতি ই উপভোগ করতে পারবেন। 


৫.পাপ 

আপনি যখন প্রেমের মধ্যে থাকেন তখন আপনি সার্বক্ষণিক পাপের মধ্যে থাকেন। ছোট পাপ না, কবিরা পাপ। পাপের কারনে প্রেম না করার কথাটা একদম প্রথমে বলা উচিত ছিলো কিন্তু যারা প্রেমে আছে বা বিবাহ বহির্ভূত প্রেম সমর্থন করে তাদের কে পাপের ভয় দেখিয়ে কোন লাভ আছে কিনা কে জানে!আর যারা পাপ থেকে বিরত থাকতে প্রেম ট্রেম এভোয়েড করে তাদের কে আলাদা করে মনে করিয়ে দেওয়ার কিছু না। তারা বুদ্ধিমান। নিজেরাই নিজেদের ভালো বুঝে বিরত আছে।

আপনি যখন প্রেম ভালোবাসার সম্পর্কে আছেন তখন আপনি ২৪ ঘণ্টায় সেই সম্পর্ক কে সমর্থন করছেন অথচ এমন সম্পর্ক হারাম। এই যে হারাম কে আপনি সমর্থন করছেন, নিজে ডুবে আছেন এতে সব সময় ই পাপ হচ্ছে যদিও আপনি আপনার প্রেমিক প্রেমিকার সাথে সব সময় দেখা করছে না কিংবা কথা বলছেন না তাও।
আর তাছাড়াও প্রেম হলো অন্তরের জিনা। আর বর্তমান প্রেম তো ব্যাভিচার ছাড়া টিকেই না। সরাসরি না হলেও পিকচার ভিডিও এসবের মাধ্যমে হলেও ব্যাভিচার করা এখন খুব ইজি হয়ে গেছে।


অল্প কিছুদিনের এই আনন্দের জন্য পরে দেখবেন নিজেই হতাশ হবেন কেননা পরে আপনার বুঝ আসতে পারে কিন্তু আপনি আপনার অতিতের পাপ কে Undo করতে পারবেন না।
আল্লাহ্‌ ক্ষমাশীল। মাফ চাইলে, ফিরে আসলে আল্লাহ্‌ মাফ করতে পারেন। কিন্তু পাপ করে হতাশ হয়ে ফিরে আসার চাইতে পাপ থেকে বেচে থেকে আল্লাহ্‌র পথে থাকা উত্তম না?


এমনিতেই আমাদের পাপের শেষ নাই এর উপর আবেগে পড়ে প্রেম ভালবাসার মাধ্যমে আরো পাহাড় সমান পাপের বোঝা নেওয়ার কি দরকার? 

শেষ কথাঃ 

যারা বুঝার তারা এমনিতেই বুঝে আর খারাপ থেকে দূরে থাকে আর যে বুঝার না সে তর্ক করে নিজে নিজের কাছে জিতে আত্ত তুষ্টিতে ভুগে।

Leave a Comment

Copy link
Powered by Social Snap