বোরকার ছবি ও দাম – বিভিন্ন ডিজাইনের বোরখার পিক With প্রাইস। দুবাই চেরি, লিনেন, জর্জেট কাপড়ের বোরকা

বর্তমানে বাজারে বিভিন্ন ধরণের রঙ বেরঙের বোরকা পাওয়া যায়। যা জামার তুলনায় আরো বেশি আকর্ষণীয় করে তৈরি করা হয়। কিন্তু সেসব বোরকা ব্যবহার করে কখনো পর্দা রক্ষা করা হয় না বরং পর্দার বরখেলাপ হয়।তবে বাজারে বর্তমানে খাস পর্দা করার জন্যও অনেক বোরকা খিমার পাওয়া যায়। আমরা পর্দা করার জন্য ভালো মানের ভালো কাপড়ের বোরকা বে ছে নিবো।অথবা উন্নত মানের কাপড় কিনে নিজেরা বোরকা বানিয়ে নিবো।
আজকের লেখায় আপনাদের বোরকার কয়েকটি কাপড় সম্পর্কে কিছু তথ্যও জানিয়ে দিবো। এগুলো জেনে রাখলে আশা করি বোরখা চিনতে সহজ হবে।

  1. বোরকার ছবি
  2. দুবাই চেরি বোরকার দাম
  3. লিলেন কাপড়ের বোরকা
  4. মেয়েদের বোরকা পরা মডেল পিক

বোরকা পরা ছবি

বোরকার ছবি

বোরকার ছবি ও দাম ২

বোরকা পরা ছবি মডেল

বোরকা পরা ছবি ডাউনলোড

বোরকা পরা ছবি ফটো

ছবির ক্রেডিটঃ এই পোস্টে ইউজ করার জন্য বোরকার ছবি খুজতে গিয়ে বুঝেছি সব সেলার/ পেজ ই একই মডেলদের ছবি নিজেরা ইউজ করে। এখন এসব ছবির আসল মালিক কে তা আমি নিজেও খুজে শিউর হতে পারিনি। বোরকা বাড়ি, বোরকা ভ্যালি, মালিকা আউটফিট এমন অনেকেই একই ছবি ইউজ করে এড দিচ্ছে, পোস্ট দিচ্ছে। আসল মালিক কে কিভাবে বুঝবো? যেহেতু ছবি গুলো আমার না তাই এই সাইট থেকে ছবি নিয়ে আপনারা কেউ ইউজ করবেন না। ছবি গুলোর আসল মালিক থেকে অনুমতি নিয়েই ইউজ করার জন্য অনুরোধ করছি। এবং আসল মালিক যদি এই পোস্ট দেখে থাকেন তাহলে প্রমান সহ আমাদের এসএমএস দিন, আমরা ক্রেডিট লিঙ্ক/ রিমুভ করে দিবো। বোরকা পরা মডেলদের ছবি ছাড়া গজ কাপড় এর সব গুলো ছবি নেওয়া হয়েছে মডার্ন চয়েস থেকে। ইন্সটা আইডিঃ Modern choice

বোরকা তৈরির জন্য উন্নত মানের কাপড়।

বোরকা তৈরির জন্য যেকোন কাপড় ব্যবহার করলে হবেনা।বোরকা তৈরি করার জন্য অবশ্যই আপনাকে একটা ভালো মানের কাপড় বাছাই করতে হবে।বোরকার জন্য এমন কাপড় কখনো ব্যবহার করা যাবে না যে কাপড় ব্যবহার করলে বোরকার ভিতর কেমন পোশাক পরা হয়েছে তা বাইরে থেকে বোঝা যায়। আজ আপনাদের বোরকা তৈরি করার জন্য তিনটা কাপড় সম্পর্কে ধারণা দিবো। যে কাপড় গুলো বোরকা তৈরি করার জন্য উপযুক্ত।

দুবাই চেরি বোরকা দাম এবং ছবি

দুবাই চেরি কাপড় বর্তমানে বোরকা তৈরিতে এগিয়ে আছে। দুবাই চেরি কাপড় বোরকা তৈরির জন্য খুব ভালো মানের কাপড়।তবে এই কাপড়ের ভিতর আবার পার্থক্য আছে। কিছু বিষয় লক্ষ্য রাখলে খুব সহজে দুবাই চেরি বোরকা চিনে নিতে পারবেন।

বাংলাদেশে বোরকার ছবি ও দাম

দুবাই চেরি ফেব্রিক্স বোরকার দাম কত?

৮৫০ টাকা থেকে ১৫০০ টাকার মধ্যে দুবাই চেরির বোরকা অনলাইনে পাওয়া যায়। অনেকে হিজাব নিকাব সহ বিক্রি করে আবার অনেকে শুধু বোরকা বিক্রি করে। তাছাড়া কাপড়ের মানের উপর ভিত্তি করেও প্রাইস কম বেশি হয়ে থাকে। বোরখা কেনার জন্য ই কমার্স ভিত্তিক ওয়েব সাইটের চাইতে আপনার নিজ জেলার মধ্যে ফেসবুক কোন সেলার থাকলে তার থেকে নিতে পারেন।

দুবাই চেরি কাপড় চেনার উপায়

  1. দুবাই কাপড় হাতে নিলেই এক রকম আরামদায়ক লাগবে।
  2. দুবাই চেরি কাপড় খুব সফ্ট হয়।
  3. কাপড়টা থলথলে হয়। যা ধরতেই মাখনের মতো লাগে।
  4. ট্রাইপ থাকে কাপড়ে।
  5. চেরি কাপড় খুব সফ্ট যার জন্য এ কাপড় ভারী নয় খুব হালকা।
  6. দুবাই চেরি কাপড় ভাঁজ হয়না।
  7. কাপড়টা খুব উজ্জ্বল হয়।

দুবাই চেরি কাপড়ের বোরকার সুবিধা

  • দুবাই চেরি কাপড় ওজনে ভারী না, খুব হালকা হয়ে থাকে যার জন্য বোরকা গুলো পরতে কষ্ট হয়না।
  • দুবাই চেরি বোরকা সহজে ভাঁজ পরে না।যার জন্য বোরকা গুলো পরিপাটি থাকে।
  • চেরি বোরকা লং লাস্টিং হয়।
  • দুবাই চেরির বোরকার কালার গুলো গ্যারান্টি থাকে।
  • দুবাই চেরি বোরকা গরমে সহজে পরা যায়।
  • দুবাই চেরি কাপড়ের খিমার নন ট্রান্সপারেন্ট হয়।

দুবাই চেরি বোরকা দিয়ে খুব সুন্দর কভার আপ বোরকা তৈরি করে নেওয়া যায়। এই বোরকা সব সময় আয়রন করতে হয়না।

চেরি বোরকার যত্ন

দুবাই চেরি বোরকা বাসায় ওয়াশ করা যায়। শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে পরিস্কার করে নেওয়া ভালো। এই কাপড় খুব সফ্ট শাইনিং তাই ঘষাঘষি করে ধোঁয়া যাবেনা

লিনেন কাপড়ের বোরকার দাম ছবি এবং যত্ন

বোরকা তৈরির জন্য লিনেন কাপড়ও খুব উপযোগী। তবে লিনেন কাপড় অনেক প্রকার আছে। গেঞ্জি ধরণের লিলেন কাপড় কখনো বোরকার জন্য ব্যবহার করা যাবে না। তাতে শরীরের গঠন বোঝা যাবে।আর সব চেয়ে বড় কথা গেঞ্জি ধরনের কোন কাপড় পর্দা রক্ষার জন্য হতে পারেনা।তাই ভালো মানের লিনেন কাপড় দিয়ে বোরকা তৈরি করতে হবে।

লিনেনের বোরকার দাম ১০০০ থেকে ৩ হাজার টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে। কম বেশি হতে পারে তবে এভারেজ দাম এমন ই। কাপড়ের গজ প্রতি দাম, বোরকার সাইজ এসবের কারনেও প্রাইসে ভিন্নতা আসে।

লিনেন কাপড় চেনার উপায়

লিনেন কাপড় ভাঁজ করে রাখলে তা সুতি কাপড়ের তুলনায় বেশি ভাঁজ পরে আর ভাঁজ স্থায়ী হয়।

  1. লিনেন কাপড় উজ্জ্বল হয়।
  2. এই কাপড়ের সুতা ছিঁড়লে তার সামনের অংশ সূচালো আর উজ্জ্বল দেখা যাবে।
  3. লিলেন কাপড়ে পানি পরলে তা দ্রুত শোষণ করবে।এবং কাপড়ে সহজে ছড়িয়ে পরবে।
  4. কাপড়ের সুতা সুচের মতো সূচালো হয়।
  5. লিলেন খুব নরম হয়।

লিলেন কাপড়ের বোরকার সুবিধা কি

  1. লিনেন কাপড়ের বোরকাতে শরীরের কাঠামো দেখা যাবেনা।(অবশ্যই ঢিলা ঢালা হতে হবে)
  2. লিনেন কাপড় তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে, যার জন্য বেশি গরম লাগে না।
  3. শরীরের আর্দ্রতাকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে।
  4. শরীর ঘাম সহজেই বের হতে পারে।।
  5. লিনেন কাপড় তাপ পরিবহন করতে পারে তাই সহজে গরম লাগেনা।
  6. বাইরের তাপ প্রবেশে বাঁধা দেয়।
  7. ৩/৪ ডিগ্রি কম তাপমাত্রা রাখতে সাহায্য করে।

লিনেন কাপড়ের বোরকার যত্ন নিবেন কিভাবে?

লিনেন কাপড় বাসায় ডিটারজেন্ট দিয়ে সহজে পরিস্কার করা যায়। এই কাপড়ে সহজে ভাঁজ পরে যার জন্য ধুয়ে আয়রণ করে তুলে রাখতে হবে। লিলেন কাপড় কড়া রোদে শুকানো যাবে না।

ডায়মন্ড জরজেট বোরকার দাম এবং পিকচার

বোরকার জগতে ডায়মন্ড জরজেট কাপড় খুবই জনপ্রিয়। সব বয়সী মেয়ে, নারী,মহিলারা ডায়মন্ড জরজেট এর বোরকা হিজাব খুব পছন্দ করেন।
ডায়মন্ড জরজেটের কাপড় দিয়ে খুব সুন্দর সুন্দর বোরকা তৈরি করা যায় আবার বাজারেও বিভিন্ন ধরনের ডায়মন্ড জরজেটের বোরকা পাওয়া যায়।

ডায়মন্ড জর্জেট বোরকার দাম অন্যান্য বোরকা খিমারের চাইতে কিছু টা বেশি। আমি অনলাইনে খুজে যা বুঝলাম তাতে মনে হচ্ছে এই কাপড়ের বোরকার দাম ৩ হাজার টাকার ঘরে থাকে। স্বল্প দামের বোরকার মধ্যে মনে হয় দুবাই চেরির বোরকা ঠিক আছে।

ডায়মন্ড জরজেট কাপড় চিনবেন কিভাবে

ডায়মন্ড জরজেট কাপড় নরমাল জরজেট কাপড়ের থেকে আলাদা। ডায়মন্ড জরজেট কাপড় নরমাল জরজেট কাপড়ের মতো ভারী কাপড় না। এই কাপড় ওজনে হালকা।
ডায়মন্ড জরজেট কাপড় হালকা কিন্তু পাতলা না।ডায়মন্ড জরজেট কাপড় নন ট্রান্সপারেন্ট, নরমাল জরজেটের মতো খসখসে নয় বরং নরম কাপড়।

ডায়মন্ড জরজেট বোরকার যত্ন

ডায়মন্ড জরজেট বোরকা পরিস্কার করার জন্য তেমন কোন বিশেষ ঝামেলা নেই। বাসায় নরমাল সাবান, ডিটারজেন্ট ব্যবহার করে পরিস্কার করা যায়।

ডায়মন্ড জরজেট তেমন কুচকুচেও যায় না তাই আয়রন করার ঝামেলাও তেমন থাকেনা। ডায়মন্ড জরজেট কাপড়ের বোরকা গুলো একদম হালকা আর এই কাপড়ের বোরকা সব সময় ব্যবহারের জন্য অনেক বেশি ব্যবহার করা হয়।


শেষ কিছু কথা

 ইসলামে মেয়েদের জন্য পর্দা ফরজ করা হয়েছে। আর মেয়েদের বাইরে পর্দা করার পোশাক হিসেবে বোরকা ব্যবহার করা হয়।আমাদের বোরকা যেনো ফ্যাশানের জন্য না হয়ে আল্লাহর বিধান পালন করার জন্য হয় এই বিষয়ে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে।তার জন্য যেভাবে পর্দার বিধান রয়েছে সেভাবে পর্দা করতে হবে।

বোরকা আমাদের জন্য কোন ফ্যাশানের পোশাক নয়।তাই আমরা বোরকা নির্বাচন করার সময় সচেতন থাকতে হবে।বোরকা তৈরি করার জন্য এমন কোন কাপড় নির্বাচন করা যাবে না যে কাপড়ে শরীরের কোন অংশ দেখা যাবে বা বোঝা যাবে।

মূল লেখকঃ রেশমি শারমিন, সম্পাদনাঃ Dhurr24.com

Scroll to Top