পর্ণ মাস্টারবেট হস্তমৈথুন থেকে বাচার উপায় ও পদ্ধতি

পর্ণ এর নেশা থেকে বাচার উপায় কি? 

নিচে ১০ টি টিপস বা উপায় দিচ্ছি।এগুলোর কয়েকটি যদি আপনি ভালো ভাবে ফলো করতে পারেন তাহলে আশা করা যায় ইনশা আল্লাহ্‌ আপনি খারাপ অভ্যাস থেকে বেচে থাকতে পারবেন।
পর্ণ হস্তমৈথুন এগুলো আধুনিক সমাজের নতুন ড্রাগ নতুন নেশাতে পরিনত হয়েছে।ইয়াবা ফেন্সিডিল এর চেয়ে এর নেশা বেশি ভয়ঙ্কর কেননা মাদকের নেশায় আক্রান্ত হলে আপনি সমাজ থেকে পরিবার থেকে দেশ থেকে সাহায্য পাবেন নেশা থেকে সুস্থ হতে কিন্তু নীল জগতের নেশায় ডুবলে আপনি কাউকে বলতেও পারবেন না। বললেও কেউ সাহায্য করবে না।এমন অবস্থায় আজ আমাদের এদেশের লাখ লাখ যুবক একা একা এই ভয়াবহ বিপদ ফেস করছে।এই সমস্যার কোন শর্ট কার্ট পথ আছে কিনা জানিনা। আপনার এই অভ্যাস একদিনে তৈরি হয়নি তাই এই অভ্যাস একদিনে যাবেও না।আপনাকে জেদ করতে হবে, চ্যালেঞ্জ করতে হবে নিজেকে। সেই চালেঞ্জে জেতার জন্য নিজের সাথে যুদ্ধ করতে হবে।

পর্ণ মাস্টারবেট থেকে দূরে থাকার টিপস 

১। আপনার চোখ নিচু করেন। শুধু বাইরে না, ঘরেও নিচু করেন। একান্তে মোবাইলে নজর সাম্লে রাখুন একান্তে গোপন রাতেও যখন পিসি ইউজ করেন তখনো নজর এর ব্যাপারে সতর্ক হোন। একটু ও না…না কোন ভাবেই না।
২। একা থাকা বন্ধ করুনঃ একা থাকার সময়ে আমাদের উপর অবসরতা ভর করে, মস্তিস্কে শয়তানি কিলবিল করে। শরীর চাই না মন চাই না তাও ভেতর থেকে কে জানি বারবার আহবান করে “একটু দেখি” দেখার জন্য।এই একটু মোটেও একটুতে থেমে থাকেনা বরং খাদের কিনারে নিয়ে গিয়ে ছুড়ে ফেলে
৩। অলস অবসর এড়িয়ে চলুনঃ উপরে বলা একা থাকার মত এটাও সেম। অলস সময় পেলে আপনার নফস আপনাকে নিয়ে খেলবে আর সেই খেলায় উৎসাহ দিবে ইবলিশ। অলস সময় এভোয়েড করতে চেষ্টা করুন। নিজেকে বিজি রাখুন। কাজের কাজ না থাকলে নতুন কিছু শিখুন। ভালো কিছু শিখতে সময় খরচ করুন। 


৪। নেট ইউজে লাগাম দিনঃ কিছু করার নাই, মন ভালো নাই, মুড অফ এটা সেটা নানা বাহানায় সব কিছুতেই নেটে প্রবেশ করা বন্ধ করুন। বিশেষ করে মুড অফ মন খারাপ এমন সময়ে ভুলেও নেট অন করবেন না। বেহুদা কাজে ঘুরাঘুরি করবেন না। ফেসবুক এ আসার আগে ঠিক করে নিন কি কি করবেন কতক্ষন সময় দিবেন আর কখন কাজ শেষ করেই বেরিয়ে যাবেন।একই কথা ইউটিউব এর ক্ষেত্রেও সেম। Randomly ভিডিও দেখে বেড়ানো উচিত না।আপনি যখন পর্ণ থেকে বাচতে যুদ্ধ করছেন তখন একটা মেয়ের সামান্য নরমাল(!!!) কোন সিন ও শয়তাঙ্কে সাহায্য করবে , আপনার নফস কে উস্কিয়ে দিতে।সতর্ক হোন। 
৫। শরীরচর্চা করুনঃ জি নিয়মিত ঘাম ঝরান। নিজেকে ক্লান্ত রাখুন। ঘাম ঝরালে নিজেকে এমনিতেও অনেক ফ্রেশ ফ্রেশ লাগবে  তখন পর্ণ দেখে মাস্টারবেট করে হালকা হতে হবে না। আপনার পক্ষে সম্ভব হলে কোন ইসলাম ফ্রেন্ডলি জিমে যান। সম্ভব না হলে ঘরেই ঘরোয়া ব্যায়াম করুন। কাজ হবে আশা করি। 
৬। সালাত আদায় করুনঃ  উপরের সব গুলো কাজ করতে অনেক পেরা লাগছে? অনেক ওজন মনে হচ্ছে?তাহলে এপরের কাজ গুলো করতে ২০% শক্তি ও ইচ্ছা ব্যয় করুন আর বাকি ৮০% ইচ্ছা ও শক্তি দিন ৫ ওয়াক্ত সালাত আদায়ে। বিলিভ মি আপনি যদি ঠিক ভাবে  সালাত আদায় করতে পারেন তাহলে দেখবেন এমনিই অনেক চাপ কমে গেছে তখন আপনার জন্য যুদ্ধটা অনেক হালকা হয়ে যাবে।তাহাজ্জুদ এর নামাজ আপনাকে আরো শক্তিশালী করবে।

এবার একটু পর্ণ নিয়ে আলগা কথা বলি! 

পর্ন আসক্তি কি সত্য ?যদিও অনেক স্বাস্থ্য এবং মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা শব্দটির ক্লিনিকাল ভাবে লক্ষণগুলি প্রায়শই অ্যালকোহল বা মাদকাসক্তির মতোই লক্ষণীয়ভাবে মিল পান। 
 যৌন আসক্তি এবং হাইপারসেক্সুয়াল ডিসঅর্ডারঃ রিসার্চ কি বলে?
কিছু মানসিক চিকিত্সকরা প্রশ্ন করেছেন যে অশ্লীল আসক্তিকে ড্রাগ বা অ্যালকোহলের আসক্তির ভিত্তিতে বাধ্যতামূলক ব্যাধি হিসাবে শ্রেণীবদ্ধ করা উচিত কিনা ? তাদের যুক্তি মূলত মস্তিষ্কের ক্রিয়াকলাপের পরিবর্তন থেকে শুরু করে যা অভ্যাসগত ওষুধ ব্যবহারকারীদের মত দেখা যায় 
2015 সালের একটি গবেষণা অনুসারে জেনারেল বিহেভিওরাল সায়েন্সে প্রকাশিত একটি ইলেক্ট্রোয়েন্সফ্লাগ্রাম(ইইজি) যখন পর্নো দেখা হয় তখন মস্তিষ্কের ক্রিয়াকলাপের (বিশেষত, P300 নামক একটি প্রতিক্রিয়াশীল ইভেন্ট) বৈশিষ্ট্যযুক্ত পরিবর্তনগুলি সনাক্ত করতে পারে। প্রতিক্রিয়া পর্নোগ্রাফি দেখার 300 মিলিসেকেন্ডের মধ্যে দেখা দিতে পারে। 

গবেষণাগুলি যুক্তি দিয়েছিলেন যে যখন কোনও ড্রাগ ব্যবহারকারী ড্রাগ-সম্পর্কিত প্যারাফেরেনিয়া বা চিত্রগুলি দেখেন তখন একই প্রতিক্রিয়া ঘটে। অর্থাৎ একজন মাদকাসক্ত যখন মাদক নেন তখন তার মস্তিকে যেমন ক্রিয়াকলাপ হয় তেমন একই ক্রিয়া হয় যখন পর্ণ দেখা হয়।ডোপামিন এর অতিরিক্ত ক্ষরণ ও এর ফলে ব্রেন বেশি আনন্দ পেতে আসক্ত হয়ে পড়ে!! 

ব্রেন ডিজিজ হিসাবে আসক্তি যে কোনও ব্যক্তি বাধ্যতামূলকভাবে পর্ন দেখেন তার দেখার আচরণ আসক্তি সম্পর্কিত চারটি ক্লিনিকাল শর্তের মধ্যে কমপক্ষে দুটি পূরণ করে , যথা:

  1. কোনও ক্রিয়াকলাপে অংশ নেওয়ার তীব্র পাশাপাশি ক্রিয়াকলাপকে হ্রাস বা নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ প্রচেষ্টা। 
  2. কর্ম, স্কুল, বা বাড়িতে প্রধান কাজগুলি সম্পূর্ণ করতে ব্যর্থতা এবং অথবা চেষ্টা ছেড়ে দিয়েছে।

আপনি পর্ণ এডিক্টেড ? লক্ষন 

  • আপনার পর্নো দৃশ্য দেখে আপনি লজ্জিত, অপরাধী বা হতাশ বোধ করেন।
  • আপনার সম্পর্ক, কাজ বা বাড়ির জীবনে যে ক্ষতি হয়েছে, হয়েছে বা থাকতে পারে তা সত্ত্বেও আপনি পর্নো দেখছেন।
  • যখন পর্নোগ্রাফি জড়িত না হয় তখন আপনার অংশীদারদের সাথে যৌন তৃপ্তি হ্রাস পায়।
  • আপনি আপনার স্ত্রী, ঘরোয়া অংশীদার এবং পরিবারের সদস্যদের থেকে আপনার পর্ন এবং পর্নো ভিউ লুকিয়ে রাখেন।
  • পর্দা কাটাতে বা পর্নো দেখা বন্ধ করতে বললে আপনি বিচলিত হন।
  • পর্নো দেখার সময় আপনি ট্র্যাক হারিয়ে ফেলেন।
  • আপনি পর্নো দেখা বন্ধ করার চেষ্টা করেছেন কিন্তু সফল হতে পারেন নি।

চিকিত্সাযদি আপনার পর্ন দেখা বাধ্যতামূলক হয়ে উঠেছে, আপনি নিজের সম্পর্কে কীভাবে অনুভব করছেন তাতে হস্তক্ষেপ করছে এবং আপনার সম্পর্ক, কর্মক্ষেত্রে এবং আপনার প্রতিদিনের জীবনের অন্যান্য দিকগুলিতে কাজ করার ক্ষমতাকে প্রভাবিত করেছে, তবে জেনে রাখুন যে আপনার এখনি থামা দরকার ও চিকিৎসা দরকার। আপনি লস্ট মোডেস্টি ব্লগ পড়ে বিস্তারিত জানুন।লিংক ঃ মুক্ত বাতাসের খোজে  

Leave a Comment

Copy link
Powered by Social Snap